শিরোনাম:
●   ভোলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বিএনপির সভাপতি সম্পাদকসহ ৭ ও আ’লীগের ৬ প্রার্থী নির্বাচিত ●   ভোলা প্রেসক্লাবকে একটি গোষ্ঠী দখল করে ব্যবসায় পরিণত করছে: জেলা আ’লীগ সভাপতি ●   ভোলায় ২৫০ শয্যার হাসপাতালের নতুন ভবন উদ্বোধন ●   সাংবাদিকের কলমই পারে অপরাধীকে দাঁত ভাঙ্গা জবাব দিতে: ভোলা প্রেসক্লাব সভাপতি অনু ●   ঢাকাস্থ ভোলা সাংবাদিক ফোরামের কমিটি ঘোষণা, কামরুল সভাপতি, জিয়া সম্পাদক ●   নৈতিক বিবেচনায় ভোলা প্রেসক্লাব নির্বাচন থেকে সরে দাড়ালাম: তুহিন ●   ভোলা প্রেসক্লাব তুমি কার…! ●   বোরহানউদ্দিন শাহবাজপুর প্রেসক্লাব এর কমিটি গঠন, মনির সভাপতি, মালেক সম্পাদক ●   ভোলা প্রেসক্লাবের পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন, অনু সভাপতি, মিঠু সম্পাদক ●   ভোলায় সংবাদিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী এসপির সাথে সাংবাদিক প্রতিনিধিদের সৌজন্য সাক্ষাৎ
ভোলা, সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯

ভোলার সংবাদ
রবিবার ● ১৬ জানুয়ারী ২০২২
প্রথম পাতা » জানা অজানা » লালমোহনে পুকুরে ধরা পরেছে বিরল প্রজাতির সাকার ফিশ
প্রথম পাতা » জানা অজানা » লালমোহনে পুকুরে ধরা পরেছে বিরল প্রজাতির সাকার ফিশ
১৩৫৯ বার পঠিত
রবিবার ● ১৬ জানুয়ারী ২০২২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

লালমোহনে পুকুরে ধরা পরেছে বিরল প্রজাতির সাকার ফিশ

 


লালমোহন প্রতিনিধি: ভোলার লালমোহনে পুকুরে ধরা পরেছে বিরল প্রজাতির সাকার ফিশ। শনিবার উপজেলার পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়নের সৈনিক বাজার সংলগ্ন এলাকার মালেক কন্টেকটার বাড়ির কামালের পুকুর থেকে ২৫টি মাছ পাওয়া যায়। মালেক কন্টেকটারেরর ছেলে কামালের জালে ধরা পরে এ মাছগুলো।

গ্রামের পুকুরে এমন মাছ পাওয়ার খবরে পুরো এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। মাছগুলো এক নজর দেখার জন্য ভিড় জমিয়েছেন উৎসুক জনতা।

জানা যায়, এই ‘সাকার ফিশ’ অ্যাকুরিয়ামে ব্যবহৃত হয়। এটি পুকুর বা জলাশয়ে চাষ, উৎপাদন বা বাজারজাত করায় নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। চাষ ছাড়াই পুকুরে সাকার ফিশের দেখা মেলায় অনেকেই হতবাক হয়েছেন। কেউ কেউ প্রথমবার দেখলেন দৃষ্টিনন্দন মাছগুলো।

ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম আজহারুল ইসলাম বলেন, এটি বিরল প্রজাতির মাছ বলা যাবে না। এগুলো মাঝে মধ্যেই দেখা যায়। অ্যাকুরিয়ামে এমন মাছ থাকে। এরা সর্বোচ্চ এক থেকে দেড় কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে। তবে এগুলো চাষ, উৎপাদন বা বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তিনি আরো জানান, এসব মাছ অন্য প্রজাতির মাছের বংশবিস্তারে বাধা সৃষ্টি করে। এ মাছ না খাওয়াই ভালো। তবে প্রকৃতিকগতভাবে পুকুরে এই মাছ আসতে পারে বলেও ধারনা করেন তিনি।





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

© 2023 দ্বীপের সাথে ২৪ ঘণ্টা Bholar Sangbad, সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।