শিরোনাম:
●   চরসামাইয়ায় জমি দখলের পায়তারার অভিযোগ ●   একটু সহযোগিতায় স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারে ভোলার মেয়ে ●   মনপুরায় মহান বিজয় দিবস পালনে আ’লীগের প্রস্তুতিমূলক সভা ●   ফেক ফেসবুক আইডি থেকে সকলকে সতর্ক থাকার আহ্বান ভোলার বাণী’র সম্পাদক ●   এখনও চরফ্যাসনের বিশ জেলের খোঁজ মেলেনি, পরিবারে শোকের মাতম ●   বোরহানউদ্দিনের টবগী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী জসিম হাওলাদার মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন ●   ঘূর্ণীঝড় জাওয়াদ কেঁড়ে নিয়েছে ভোলার শত শত কৃষকের স্বপ্ন ●   তজুমদ্দিনের সোনাপুর ইউনিয়নে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত ●   চরফ্যাশনে ট্রলার ডুবির দুই দিনেও মেলেনি নিখোঁজ ২০ জেলের সন্ধান ●   বোরহানউদ্দিনে কাফনের কাপড় প‌ড়ে প্রতীক আনার পথে হামলা, মোটরসাই‌কেল ভাংচুর, আহত ১০
ভোলা, বৃহস্পতিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২১, ২৫ অগ্রহায়ন ১৪২৮

ভোলার সংবাদ
শুক্রবার ● ১৯ নভেম্বর ২০২১
প্রথম পাতা » চরফ্যাশন » ভোলার উপকূলী থেকে হারিয়ে যাচ্ছে নোনা কাটা ইলিশ
প্রথম পাতা » চরফ্যাশন » ভোলার উপকূলী থেকে হারিয়ে যাচ্ছে নোনা কাটা ইলিশ
৮২ বার পঠিত
শুক্রবার ● ১৯ নভেম্বর ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ভোলার উপকূলী থেকে হারিয়ে যাচ্ছে নোনা কাটা ইলিশ

 ---

চরফ্যাশন প্রতিনিধি: গৃহস্থ বা মৌসুমী ইলিশ ব্যবসায়ীরা ইলিশ মৌসুমে কম মূল্যে বড়ো ও মাঝারি আকারের ইলিশ ক্রয় করে নারীভূড়ি ও আশঁ ছাড়িয়ে নেয় এবং কেটে পিস, পিস করে পরিস্কার করে। এর পর সামুদ্রিক বা মোটা লবন দিয়ে কিছুদিনের জন্য টিনের জারে তা প্রক্রিয়াজাত করে। পরে ইলিশ মৌসুম শেষ হলে তা খোলা বাজারে অধীক মূল্যে বিক্রি করে। এছাড়াও ভোজন রসিক গৃহস্থরা দৈনন্দিন খাবারে অথবা অতিথি আপ্যায়নেও এ নোনা ইলিশ পরিবেশন করে থাকে। যা ঘ্রাণ ও স্বাদে অতুলনীয় এবং প্রটিনে সমৃদ্ধ। ইলিশ মাছ প্রজন শেষে গভীর নদী ও সাগরে চলে যাওয়ায় জেলে পল্লীতে বর্তমানে চলছে ইলিশের আকাল। আর এ ইলিশ সংকটে জেলার বিভিন্ন এলাকাগুলোতে ঐতিহ্যবাহী এই নোনা ইলিশ বা কাটা ইলিশ আগের মতো এখন আর দেখা যাচ্ছেনা।

ভোলার খাল এলাকার ইলিশ আড়ৎদার নাছির মাঝি বলেন,বিগত বছরগুলোতে জেলে পাড়ায় গেলে এ নোনা বা কাটা ইলিশ পাওয়া যেত। বাজারে এখন সারা বছর ধরে মাছ,মাংস সংরক্ষণে কম মূল্যে বিভিন্ন মডেলের ফ্রিজ পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়া জেলার দূর্গম চরাঞ্চলেও এখন বিদ্যুতের ব্যাপক উন্নয়ন হওয়ায় ইলিশ মাছে লবন দিয়ে তেমন কেউ প্রক্রিয়াজাত করেনা। জেলেরা আড়ৎদার ও মহাজনদের দাদনের জালে আটকে থাকায় ভাগে পাওয়া ইলিশ বিক্রি করে দেয়। ফলে জেলেরা বাড়িতে বেশি পরিমানে ইলিশ নিতে না পাড়ায় তাঁরা এখন আর কাটা বা নোনা ইলিশ তৈরী করেনা। চরফ্যাশনের মাদ্রাজ ইউনিয়নের জেলে কামরুল ইসলাম বলেন, ভাগের ইলিশ মাছ বিক্রি করে ফেলি। এছাড়াও বর্তমানে তেমন ইলিশ পাওয়া যাচ্ছেনা আর যা পাই তা জাটকা হওয়ায় নুন (লবন) দেয়া হয়না।

দুলারহাট বাজারের ইলিশ ব্যবসায়ী জাহাঙ্গির হোসেন বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সঠিক সময়ে ইলিশ মাছ পাওয়া যায়না। শিত মৌসুমের শুরুতে আমরা বড় ইলিশ পাচ্ছিনা যার ফলে ছোট ইলিশ দিয়ে কাটা বা নোনা ইলিশ তৈরী করা হয়না। ক্রেতা মো. ফারুক বলেন,দীর্ঘ পাঁচ বছরের মধ্যে আমাদের এলাকায় কাটা ইলিশ বা নোনা ইলিশ তেমন পাওয়া যাচ্ছেনা। জাহানপুর ইউনিয়নের জেলে ইউসুফ মাঝি বলেন,জেলেরা তাঁদের পেশা বদল করার চেষ্টা করছে। বছরের বেশিরভাগ সময় নদী ও সাগরের আবহাওয়া খারাপ থাকে এবং বছরের বিশেষ কিছু সময় ছাড়া তেমন ইলিশ পাওয়া যায়না। যখন ইলিশ পাওয়া যায় তখন প্রচুর দাম থাকে যার কারণে বেশিরভাগ জেলে ইলিশ মাছ বিক্রি করে দেয়ায় কাটা বা নোনা ইলিশ হারাচ্ছে তার নিজস্ব ঐতিহ্য।

 মেরিন ফিসারীজ অফিসার সাইদুর রহমান বলেন, এক সময়ে জেলেরা অপ্রতিরোধ্যভাবে ইলিশ শিকার করেছে। ক্রেতারাও কম মূল্যে প্রচুর পরিমানে ইলিশ ক্রয় করতেন। তখনকার সময়ে গ্রামাঞ্চলে ইলিশ সংরক্ষণে ফ্রিজ না থাকায় তখন মানুষ ইলিশ মাছ লবন দিয়ে প্রক্রিয়াজাত করে রাখত। বর্তমানে উপকূলীয় ও দ্বীপাঞ্চলীয় এলাকাগুলোতে বিদ্যুতায়ন হওয়ায় প্রচুর পরিমানে বরফ মিল তৈরী হয়েছে এবং বেশিরভাগ মানুষ এখন ফ্রিজারেটর ব্যবহার করে খাবারের মাছ মাংস দীর্ঘদিন ধরে সংরক্ষণ করে ক্রয় বিক্রয় করছে। এছাড়াও জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে নদীতে ইলিশের অভয়ারণ্য নষ্ট হচ্ছে এবং মাছেরও প্রজনন অনেকটা হ্রাস পাওয়ায় নদীতে ইলিশের পরিমানও কমে যাচ্ছে। আর বাজারেও ইলিশের প্রচুর চাহিদা ও বেশি দাম থাকার কারণে জেলেরা যা ইলিশ পাচ্ছে তাই বিক্রি করে দিচ্ছে। আর তাই এখন আর ঐতিহ্যবাহী কাটা ইলিশের প্রক্রিয়াজাত তেমন কেউ করেনা। জেলেরা যদি সরকারের নির্দেশনা মেনে চলে তাহলে ইলিশের পুরনো ঐতিহ্য আবার ফিরে আসবে বলেও মনে করেন এ কর্মকর্তা।

 





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)