শিরোনাম:
●   জাতির পিতা সোনার বাংলা গড়তে চেয়েছিলেন: মনপুরায় জনপ্রশাসন সচিব ●   লালমোহনে সাপের কামড়ে কলেজ ছাত্রের মৃত্যু ●   ভোলার ২২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উপ-পরিচালকের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ ●   ভোলায় ঈমান আকিদা সংরক্ষণ ও অনৈসলামিক কার্যকলাপ প্রতিরোধ জেলা কমিটি গঠন ●   বোরহানউদ্দিনে এমপির নাম ভাঙ্গিয়ে রাতের আঁধারে চেয়ারম্যানের জমি দখলের অভিযোগ ●   দৌলতখানে ট্রাক্টর-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে মাদ্রাসার শিক্ষক নিহত! ●   ভোলা জেলা বিওজেএ কমিটির সভাপতি ফরিদ, সম্পাদক ছোটন ও সাংগঠনিক ফরহাদ ●   ভোলায় “লাউবেগুন” চাষে সফল কৃষক সেলিম ●   লালমোহনে প্রতারণার মাধ্যমে এক অসহায় নারীর টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ●   ভোলায় পুলিশের ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত
ভোলা, রবিবার, ২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯

ভোলার সংবাদ
রবিবার ● ২১ আগস্ট ২০২২
প্রথম পাতা » চরফ্যাশন » চরফ্যাশনের মেঘনায় জলদস্যু ভেবে নদীতে ঝাপ, চাচা ভাতিজার মরদেহ উদ্ধার
প্রথম পাতা » চরফ্যাশন » চরফ্যাশনের মেঘনায় জলদস্যু ভেবে নদীতে ঝাপ, চাচা ভাতিজার মরদেহ উদ্ধার
২৩৬ বার পঠিত
রবিবার ● ২১ আগস্ট ২০২২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

চরফ্যাশনের মেঘনায় জলদস্যু ভেবে নদীতে ঝাপ, চাচা ভাতিজার মরদেহ উদ্ধার

---

চরফ্যাশন প্রতিনিধি: ভোলার চরফ্যাশনের মেঘনা নদী থেকে মো. রাব্বি (১৫) ও মিজানুর রহমান মাঝি (৪৭) নামে দুই জেলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শবিবার  রাতে ট্রলারযোগে মেঘনা নদীতে মাছ শিকারে গিয়ে কারেন্ট জালে পেছিয়ে তারা মারা যায় ।

 নিহত দুজন সম্পর্কে চাচা ভাতিজা। তারা হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নের চর পক্ষিরা গ্রামের বাসিন্দ।

শশিভূষণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান পাটোয়ারী নিশ্চিত করে বলেন,  রাত ৮টার দিকে মেঘনা নদীতে মাছ শিকারে যায়। একপর্যায়ে তাদের ট্রলারের পাশ দিয়ে দ্রুতগতিতে আরেকটি ট্রলার যাচ্ছিল। সেসময় রাব্বিসহ ট্রলারে থাকা সকলে মনে করেছিল পাশ দিয়ে যাওয়া ট্রলারটি জলদস্যুদের। সেই ভয়ে রাব্বি হঠাৎ করে নদীতে ঝাপ দেয়। সে (রাব্বি) সাঁতার জানতো না। নদীতে থাকা কারেন্ট জালে রাব্বির পা পেঁচিয়ে যায়। তখন ভাতিজা রাব্বিকে বাঁচাতে চাচা মিজানুর রহমানও নদীতে ঝাপ দেয়। এরপর চাচা মিজানুর রহমানেরও পা জালে আটকিয়ে যায়। পরে ট্রলারে থাকা অন্যান্য জেলেরা নদী থেকে তাদেরকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে।  নিহতদের শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন নেই। এবং তাদের পরিবার থেকে কোনো অভিযোগ করা হয়নি। নিহতদের পরিবার বিনা ময়নাতদন্তে তাদের মরদেহ দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে। পরে শশিভূষণ থানায় এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে বিনা ময়নাতদন্তে নিহতদের মরদেহ তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)