শিরোনাম:
ভোলা, রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

ভোলার সংবাদ
সোমবার ● ১১ জুন ২০১৮
প্রথম পাতা » বিশ্ব » ভোলায় আসহায় বঞ্চিতদের আনন্দ ভাগাভাগি
প্রথম পাতা » বিশ্ব » ভোলায় আসহায় বঞ্চিতদের আনন্দ ভাগাভাগি
২০৫ বার পঠিত
সোমবার ● ১১ জুন ২০১৮
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ভোলায় আসহায় বঞ্চিতদের আনন্দ ভাগাভাগি

 

 ---

ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজের একটি অনুষ্ঠানের উপস্থাপিকা টিভিতে মুখ ফস্কে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকেও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের মত স্বৈরাচার বলে অভিহিত করেছেন। পরে তিনি এর জন্য ক্ষমা চাইলেও, আপাতদৃষ্টিতে ভুলক্রমে করা উক্তি গণমাধ্যমগুলোতে ব্যাপকভাবে প্রচার পায় এবং সামাজিক মাধ্যমগুলোতে এটি নিয়ে বিভিন্ন পোস্ট ভাইরাল হয়ে পড়ে।

জুন ১২ তারিখে সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিতব্য উত্তর কোরিয়া সম্মেলনে বৈঠকে বসবেন ট্রাম্প ও কিম।

রোববার ‘ফক্স অ্যান্ড ফ্রেন্ডস’ অনুষ্ঠানের উপস্থাপিকা অ্যাবি হান্টসম্যান এই সম্মেলনকে ‘দুই স্বৈরাচারের বৈঠক’ বলে অভিহিত করেন।

‘ফক্স ও ফ্রেন্ডস’-এর ওই পর্বে আমন্ত্রিত ছিলেন অ্যান্থনি স্কারামুচ্চি। অ্যান্থনি হোয়াইট হাউজের কমিউনিকেশন ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার ১০ দিনের মাথায় তাকে বরখাস্ত করা হয়। তিনি বহুল আলোচিত ট্রাম্প-কিম বৈঠক নিয়ে আলোচনা করেন।ট্রাম্পের সিঙ্গাপুরে উপস্থিত হওয়ার ভিডিও দেখিয়ে হান্টসম্যান বলেন, ‘এটা ইতিহাস’।

‘এই বৈঠকে দুই স্বৈরাচারের মধ্যে যাই হোক না কেন, আমরা এখন যা ঘটতে দেখছি তা ইতিহাস’ যোগ করেন তিনি।

মজার বিষয় হচ্ছে ট্রাম্পকেও কিমের মত স্বৈরাচার বলায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত অন্য দুজন কোনো প্রতিক্রিয়াই দেখায়নি। হান্টসম্যানের বক্তব্যের ঠিক পরপরই অ্যান্থনি ট্রাম্পের পররাষ্ট্রনীতির উচ্চ প্রশংসা শুরু করেন।

পরে হান্টসম্যান ক্ষমা প্রার্থনা করে বলেন, ‘আপনারা জানেন লাইভ টিভিতে অনেক সময় সব কিছু নিখুঁতভাবে বলা সম্ভব হয় না। আমি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আর কিম জং উন দুজনকেই স্বৈরাচার বলে অভিহিত করেছি। আমি এটা করতে চাইনি। ভুল করেছি, অতএব ক্ষমা চাইছি।’

কিন্তু টুইটারসহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীরা হ্যান্টসম্যানের শব্দচয়নের প্রশংসা করে বলেন, এটা ট্রাম্প সম্পর্কে ফক্স নিউজের অন্যতম সৎ সাংবাদিকতা হয়েছে





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)